top of page
For Newsletter
new logo.jpg

কলকাতায় 5G ইন্টারনেট পরিষেবা।


Department of Telecom-এর তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে আগামী মাসের 26 তারিখ থেকেই ভারতে 5G নিলাম প্রক্রিয়া অনুষ্ঠিত হবে এবং তার আগে থেকে নিলাম সংক্রান্ত বিভিন্ন কনফারেন্স হবে। এবং পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর টেলিকম সংস্থাগুলিকে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ জমা করতে হবে। সবশেষে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে সংস্থাগুলিকে 5G চালু করার অনুমতি দেওয়া হবে। ওই তালিকায় কলকাতার নামও রয়েছে। এছাড়াও ভারতের আরও 12টি শহরে প্রথমেই 5G চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে আমেদাবাদ, বেঙ্গালুরু, চণ্ডীগড়, চেন্নাই, দিল্লি, গান্ধিনগর, গুরগাঁও, হায়দরাবাদ, জামনগর, লখনউ, মুম্বই এবং পুনে।যদিও কোন টেলিকম অপারেটর কোন শহরে প্রথম 5G নেটওয়ার্ক চালু করবে সেবিষয়ে জানা যায়নি।

তবে মনে করা হচ্ছে কলকাতায় সর্বপ্রথম Airtel চালু করতে পারে 5G পরিষেবা। কারণ, কয়েক মাস আগে Airtel-এর তরফে কলকাতার পার্শ্ববর্তী এলাকায় 5G পরিষেবার ট্রায়াল দেওয়া হয়েছে। এবং পুরো প্রক্রিয়াতে সফল হয়েছে Airtel। অন্যদিকে মুম্বইয়ে ট্রায়াল করেছিল Reliance Jio। এদিকে Department of Telecom-এর তরফে মোট আটটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি করা হয়েছে। যারা 2018 সাল থেকে 5G টেস্ট প্রজেক্টের সঙ্গে যুক্ত ছিল। ওই সংস্থাগুলির মধ্যে রয়েছে IIT Bombay, IIT Delhi, IIT Hyderabad, IIT Madras, IIT Kanpur, IISC Bangalore, SAMEER এবং Centre of Excellence in Wireless Technology।

DoT এর তরফে জানানো হয়েছে, মোট 20 বছরের জন্য স্পেকট্রাম বণ্টন করা হবে। এবং তার জন্য টাকা দিতে হবে টেলিকম সংস্থাগুলিকে। একসঙ্গে পুরো টাকা না দিলেও প্রতি বছরের শুরুতেও নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকাও দিতে পারবে। জুলাই মাসে যে নিলাম প্রক্রিয়া শুরু হবে তাতে 72 Ghz এর স্পেকট্রাম প্রায় 20 বছরের জন্য দেওয়া হবে। একাধিক লো, মিডিয়াম এবং হাই ফ্রিকোয়েন্সি ব্যান্ডের জন্য স্পেকট্রাম বণ্টন করা হবে বলে জানা গেছে। কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, লো ব্যান্ডের মধ্যে 600, 700, 800, 900, 1800, 2100 এবং 2300MHz এর স্পেকট্রাম বণ্টন করা হবে। মিড রেঞ্জের মধ্যে 3300 MHz এবং হাই ফ্রিকোয়েন্সির মধ্যে 26 GHz এর স্পেকট্রাম বণ্টন করা হবে।


movie-entertainment-logo-vector-38310588.png
bottom of page