top of page
For Newsletter
new logo.jpg

ফের ইতিহাস, ৪৯ বছর পর অলিম্পিক হকির সেমিফাইনালে ভারত


৪৯ বছর পর ফের অলিম্পিক (Tokyo Olympics) হকির সেমিফাইনালে ভারত। কোয়ার্টার ফাইনালে গ্রেট ব্রিটেনকে ৩–১ ব্যবধানে হারাল ভারত। ফলে পদকের আরও কাছে চলে এল ভারতীয় পুরুষদের হকি দল। আর একটি ম্যাচ জিততে পারলেই সোনা বা রুপো নিশ্চিত।

১৯৮০ মস্কো অলিম্পিকে শেষবার হকিতে পদক এসেছিল ভারতের। সোনাজয়ী ভারতীয় সেই দলের ক্যাপ্টেন ছিলেন বাসুদেবন ভাস্করণ। ৪১ বছর পর আবার ইতিহাসের কাছাকাছি ভারতীয় দল। তবে সেবার ছয় দলের পুলে দ্বিতীয় অবস্থানে থেকে সরাসরি ফাইনালের টিকিট পেয়েছিল ভারতীয় দল। ১৯৭২ সালে মন্ট্রিল অলিম্পিকে শেষবার সেমিতে পৌঁছেছিল ভারতীয় হকি দল।

টোকিওতে গ্রেট ব্রিটেনের বিরুদ্ধে মনপ্রীত সিংরা মাঠে নামার আগে দেশকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেছিলেন ১৯৮০–র সোনাজয়ী অলিম্পিয়ান। তাঁর স্বপ্ন যে একেবারে মিথ্যে ছিল না প্রমাণ হয়ে গেল। গ্রেট ব্রিটেনকে ৩–১ ব্যবধানে হারিয়ে অলিম্পিক হকির সেমিফাইনালে পৌঁছে গেল ভারত। ৪১ বছরের শাপমোচনের দিকে আরও একধাপ এগিয়ে গেলেন মনপ্রীতরা। পদকের সম্ভাবনা উজ্জ্বল হল মনপ্রীতদের।রিও অলিম্পিকে কোয়ার্টার ফাইনালে আকাশদীপের করা গোলে এগিয়ে গিয়েও শেষরক্ষা হয়নি। বেলজিয়ামের কাছে ৩–১ ব্যবধানে হেরে পদকের স্বপ্ন শেষ হয়ে গিয়েছিল। এদিন গ্রেট ব্রিটেনকে হারিয়ে স্বপ্ন পূরণের দিকে আরও একধাপ এগিয়ে গেল ভারত।

গ্রুপ লিগে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৭–১ গোলে বিধ্বস্ত হওয়া ছাড়া গোটা প্রতিযোগিতাতেই দারুণ খেলা উপহার দিয়ে এসেছে ভারতীয় দল। গ্রেট ব্রিটেনের বিরুদ্ধেও ধারাবাহিকতা বজায় রাখলেন মনপ্রীতরা। গ্রেট ব্রিটেনের বিরুদ্ধে ম্যাচের শুরু থেকেই আধিপত্য ছিল ভারতের। ১ মিনিটেই ডি বক্সের মধ্যে সুবিধাজনক জায়গায় বল পেয়েছিলেন মনদীপ। কিন্তু গ্রেট ব্রিটেনের ডিফেন্ডাররা এমনভাবে ঘিরে ধরেন, গোলে শট নেওয়ার সুযোগ পাননি। ৩ মিনিটে পেনাল্টি কর্ণার পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি ব্রিটেন। ম্যাচের ৭ মিনিটে এগিয়ে যায় ভারত। সিমরনজিৎ সিংয়ের পাস থেকে দলকে এগিয়ে দেন দিলপ্রীত সিং। শুরুতে গোল পেয়ে আত্মবিশ্বাস বেড়ে যায় মনপ্রীতদের। ১৬ মিনিটে শুটিং এরিয়ায় বল পেয়ে ২–০ করেন গুরজন্ত সিং। মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছিলেন নীলাকান্ত শর্মা। কিন্তু কাজে লাগাতে পারেননি।

দ্বিতীয়ার্ধে সমতা ফেরানোর জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে গ্রেট ব্রিটেন। আক্রমণাত্মক মেজাজে খেলতে থাকলেও ভারতীয় ডিফেন্স ভেদ করতে পারছিল না। অবশেষে ৪৫ মিনিটে পেনাল্টি কর্ণার কাজে লাগিয়ে স্যামুয়েল ওয়ার্ড ব্যবধান কমান। ম্যাচের শেষ দিকে ভারতকে চেপে ধরে গ্রেট ব্রিটেন। একের পর আক্রমণ তুলে নিয়ে আসলেও রুপিন্দার সিংদের তৎপরতায় তিন কাঠি ভেদ করতে পারেনি। ৫৭ মিনিটে গ্রেট ব্রিটেনের ম্যাচে ফেরার আশা শেষ করে দেন হার্দিক সিং। প্রতিআক্রমণে উঠে এসে নীলাকান্ত শর্মার কাছ থেকে বল পেয়ে সোলো রানে এগিয়ে গিয়ে দুরূহ কোন থেকে ৩–১ করেন হার্দিক। একই সঙ্গে ৪১ বছর পর অলিম্পিক হকির সেমিফাইনালে পৌঁছে যায় ভারত।


Check out for more news on https://www.facebook.com/AMPTvNews

ความคิดเห็น


movie-entertainment-logo-vector-38310588.png
bottom of page